হিন্দুত্ব ব্রিগেডের সনাতন ধর্মের পাঁচজন সদস্য সাংবাদিক গৌরী লংকেশের হত্যার পেছনে মূল সন্দেহভাজন হিসেবে চিহ্নিত

কর্ণাটকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানানোর কয়েক দিন পরেই তারা সাংবাদিক গৌরী লংকেশের হত্যাকারীদের চিহ্নিত করেছে, হিন্দুত্ব ব্রিগেডের সনাতন ধর্মের পাঁচজন সদস্যকে হত্যার পেছনে মূল সন্দেহভাজন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে চারজনের বিরুদ্ধে ইন্টারপোল রেড-কর্ণার নোটিশ রয়েছে ২০০৯ সালে গোয়ার মাদগাও এ বোমা বিস্ফোরণে জড়িত থাকার অভিযোগে।
ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের একটি রিপোর্টে বলা হয় যে পাঁচ সন্দেহভাজনদের মধ্যে কোলাহপুরের প্রিভেন লিমকার (৩৪) মাঙ্গালোরের জয়প্রকাশ (৪৫) পুনের শারং অকালকার (৩৮), সাংগলির রুদ্র পাটিল (৩৭) এবং সাতারার বিনয় পাওয়ার (৩২)।
লংকেশ হত্যার তদন্তের অংশ হিসেবে কর্নাটক পুলিশের বিশেষ তদন্ত দল কর্তৃক তদন্তের মূল সন্দেহভাজনদের মধ্যে রয়েছে তারা।

এর আগে এই সপ্তাহে, কর্ণাটক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রামলিংগা রেড্ডি বলেন যে তাঁর সরকার হত্যাকারীদের পরিচয় প্রতিষ্ঠা করেছে কিন্তু তাদের পরিচয় প্রকাশের ফলে অনুসন্ধানকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

“আমরা সংকেত পেয়েছি, কিন্তু আমরা এখন পর্যন্ত মিডিয়াতে কিছু বলতে পারি না কারণ আমরা যে সংকেত পেয়েছি তার সঠিক প্রমাণ আমাদের থাকতে হবে” – তিনি বলেন।

এই সন্ত্রাসী কার্যক্রমের জন্যই সনাতন সংস্থার নাম প্রথমবারের মতো আসেনি।

নরেন্দ্র ধাভলকরের হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গত বছর সিবিআই সনাতন সংস্থা এবং হিন্দু জনজাগ্রিতী সমিতির একজন সিনিয়র সহকারীকে গ্রেফতার করেছে।

এই মাসের প্রথম দিকে সিবিআই তার বাসায় অভিযান চালানোর পর ড. বীরেন্দ্র থাওড়ে কে গ্রেফতার করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *