সুরাটে শ্রমিকদের ভিড় নিয়ে মিডিয়া কেন চুপ ?

সুরাটে শ্রমিকদের ভিড় নিয়ে মিডিয়া কেন চুপ ?

মিডিয়া কোন ঘটনাকে নিয়ে অতিসক্রিয় হয়ে যাচ্ছে। আবার কোন ঘটনাকে আড়াল করারও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি লকডাউনের ফলে স্তব্ধ হয়ে গেছে ভারতীয় জনজীবন। ভেঙে পড়েছে অর্থনৈতিক পরিকাঠামো। বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে দিনমজুরেরা। মুম্বাই ও দিল্লীর মতো শহরগুলোতে বাস করেন হাজারো শ্রমিক যারা নিজেদের বাড়ি ঘর ছেড়ে শহরে থাকেন শুধুমাত্র অর্থ উপার্জনের জন্য। করোনা ভাইরাসের জেরে আচমকাই লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে শহরগুলোতে একপ্রকারের বন্দী হয়ে পড়েন তারা। অনেকেই পায়ে হেঁটেই বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ২১ দিনের মাথায় লকডাউন শেষ হওয়ার কথা ছিল তাই অনেকেই আশা করেছিলেন যে লকডাউন শেষ হলেই তারা বাড়ি ফিরবেন। মুম্বাই এর বান্দ্রাই এই জন্যই হাজার হাজার শ্রমিক জড়ো হন, তারা খবর পেয়েছিলেন বা আশা করছিলেন যে তাদের জন্য স্পেশাল ট্রেন দেওয়া হবে। বান্দ্রা ষ্টেশন এর নিকটেই আছে জামা মসজিদ। এই ঘটনাকে নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়া সাম্প্রদায়িক রুপ দেওয়ার চেষ্টা করে। তারা বান্দ্রার ষ্টেশন বাদ দিয়ে মসজিদকে নিয়েই বেশী রিপোর্ট করতে শুরু করে। খবরগুলো শুনলে মনে হবে মুসলিমরা চক্রান্ত করে একসাথে জড়ো হয়েছে।  অন্যদিকে একই ধরণের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয় গুজরাটের সুরাটে কিন্তু গোদি মিডিয়াকে চুপ থাকতে দেখা যাই কেননা এটি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদির গুজরাট মডেলের অংশ। সুরাটের এই শ্রমিকরাই কিছু কিছু জায়গায় আগুন লাগানোর মতো কাজও করেছিল কিন্তু সেই ঘটনাও মিডিয়াই সেরকম স্থান পায়নি। বান্দ্রাই যখন ভিড় জমায়েত হয় তখন মিডিয়া প্রথমে মসজিদটাই দেখতে পেয়ে এই ঘটনাকে হিন্দু-মুসলিম করার চেষ্টা করে। অথচ সুরাটের একই রকম ভিড় যেন তাদেরকে দুরবীন নিয়ে দেখতে হচ্ছে সংবাদ করার জন্য।
এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA