আজান দেওয়াই মসজিদে হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণ

উত্তর প্রদেশের সিকরিগঞ্জে আজান দেওয়াই মসজিদে হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণ

ডিএনএম ডেস্কঃ

করোনা ভাইরাসের তাণ্ডবের মধ্যেই ইসলাম বিদ্বেষের ঘটনা বেড়ে চলেছে ভারতের মাটিতে। এরকমই একটি ঘটনার সাক্ষী উত্তর প্রদেশের সিকরিগঞ্জের একটি মসজিদে। সেখানে আজান দেওয়াই কারনে মসজিদে হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণ এর ঘটনা সামনে এসেছে। উল্লেখ্য এর আগেও মসজিদে আজান নিষিদ্ধ করার কথা বলা হয়েছিল দিল্লি পুলিশের এক কনস্টেবলের পক্ষ থেকে। পরে দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মনিশ সিষোদিয়া বলেন যে এরকম কোন অর্ডার দেওয়া হয়নি।

উত্তর প্রদেশের সিকরিগঞ্জের বনকাঁটা গ্রামের বাসিন্দা সোনু আলি জানান – “থানার পক্ষ থেকে আজান দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়েছিল যে তিনজনে নামাজ পড়তে পারবে মসজিদে। আজানের সময় দুইজন নামাজ পড়তে যায় মসজিদে। কিন্তু আজান দেওয়া শেষ হলেই এলাকার কয়েকজন হিন্দুত্ববাদী মসজিদে এসে গণ্ডগোল শুরু করে দেয়। তারা হল দিপক সিং, রাজন সিং, জয় সিং, বান্টি সং, বারা সিং, ভোলা সিং এবং আরও দুজন যাদের নাম আমি জানিনা।”

মসজিদে আজান দিলেও কি করোনা ভাইরাস ছড়ায়? তাহলে আজানের এতো বিরোধিতা কেন?

মসজিদে আজান দিলেও কি করোনা ভাইরাস ছড়ায়? তাহলে আজানের এতো বিরোধিতা কেন?উত্তর প্রদেশের শিকরি গঞ্জ থানার বনকটা গ্রামের একটি মসজিদে আজান চলাকালীন কয়েকজন হিন্দুত্ববাদী মসজিদে ঢুকে হামলা চালায়, এবং পবিত্র কুরআন শরীফ কে আলমারি থেকে ছুড়ে ফেলে দেয়।https://dailynewsmirror.com/2020/04/27/up-masjid-attacked-for-giving-azan/

Gepostet von Daily News Mirror – DNM am Montag, 27. April 2020

 

 

“এরা প্রথমে আমাদেরকে মারার হুমকি দেয় তারপরে চলে যায়। কিন্তু বারা সিং পরে আবার লোকজন নিয়ে এসে আমাদের কে মারধোর শুরু করে। তারপরে আমার আব্বা আজমত আলি, উনি ওদেরকে বাধা দেওয়ায় চেষ্টা করলে তাকেও মারধোর করা হয়। আব্বার মাথা ফেটে গিয়েছে এবং দুই জায়গায় ফ্রাকচার হয়েছে।”

মাত্র কয়েকদিন আগেই  কয়েকদিন ভারতে মুসলিমদের উপর ক্রমবর্ধমান আক্রমণ ও বিদ্বেষ নিয়ে আরব বিশ্বে সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছিল। মুসলিমদের সর্ববৃহৎ সংস্থা ওআইসি ও এর নিন্দা করে ভারত সরকারকে ব্যবস্থা গ্রহন করতে বলেছিল। যার জবাবে বিজেপি নেতা মুক্তার আব্বাস নাকভি টুইট করে বলেছিলেন যে “ভারতের মুসলিমরা খুব ভালো আছে। ভারত মুসলিমদের জন্য জান্নাত।” আর সেই ‘জান্নাতে আজান দেওয়াই মসজিদে হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণ হল!

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA