জলপাইগুড়িতে ওয়াকফ সম্পত্তিতে বিজেপির অফিস নির্মাণ রুখার দাবীতে PFI এর প্রেস বিজ্ঞপ্তি

জলপাইগুড়িতে ওয়াকফ সম্পত্তিতে বিজেপির অফিস নির্মাণ রুখার দাবীতে PFI এর প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ইজাজ আহমেদ,ধুলিয়ান: ‘জলপাইগুড়িতে ওয়াকফ সম্পত্তিতে বিজেপির অফিস নির্মাণ রুখতে হবে’ এই দাবী জানি প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করলো পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া (PFI)। পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সভাপতি হাসিবুল ইসলাম তার একটি বিবৃতিতে স্পষ্টভাবে জানান যে, “জলপাইগুড়িতে ওয়াকফ সম্পত্তিতে বিজেপি চারতলা দলীয় অফিস নির্মাণ করার যে সিদ্ধান্ত গ্ৰহণ করেছে তা বন্ধ করতে হবে”। তিনি আরো বলেন যে, “রাজ্য সরকারের দায়িত্ব হল ওয়াফবোর্ডের মাধ্যমে ওয়াকফ সম্পত্তি রক্ষা করা। কিন্তু খুবই দুঃখজনক যে, পশ্চিমবঙ্গের শাসক দলের অধীনে থাকা পৌরসভা ওয়াকফ সম্পত্তিতে বিজেপির দলীয় অফিস নির্মাণ করার অনুমতি দিয়েছে”। বিজেপি যেখানে সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়ানোর সুযোগ পায়, রাজনৈতিক ফায়দার জন্য সেই সুযোগকে কাজে লাগায়। ফলে তাদের জন্য এমন পদক্ষেপ গ্রহণ অপ্রত্যাশিত নয়। কিন্তু বিজেপির বিরুদ্ধে সদা সুর চড়ানোর দাবি করা শাসক দলের অধীনে থাকা পৌরসভার বিজেপির এই পদক্ষেপের অনুমতি প্রদান শুধু বিস্ময়কর নয়, বরং হতাশাজনকও বটে। কারণ ওয়াকফ সম্পত্তির সঙ্গে মুসলিম সম্প্রদায়ের ধর্মীয় বিশ্বাস জড়িত আছে। সেই সম্পত্তির উপর আঘাত হানার অর্থই হল মুসলিম সম্প্রদায়ের বিশ্বাসের উপর আঘাত হানা। কারণ ওয়াকফ সম্পত্তি না হস্তান্তর করা যায়, আর না তা কোন ব্যক্তি বা পার্টির দখলে যেতে পারে। কেউ যদি ওয়াকফ সম্পত্তি দখল করার অপচেষ্টা করে তাহলে সরকারের দায়িত্ব সেই সম্পত্তি রক্ষা করার মাধ্যমে মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতা রক্ষা করা। জলপাইগুড়িতে ওয়াকফ সম্পত্তিতে বিজেপির অফিস নির্মাণ রুখার দাবীতে PFI এর প্রেস বিজ্ঞপ্তি করোনা মহামারী, দীর্ঘ লকডাউন, তার উপর আমফুন ঝড়ের তান্ডব ইত্যাদির ফলে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ বহুমুখী সমস্যার মধ্যে আছে। এমন সময়ে ওয়াকফ সম্পত্তি নিয়ে বিজেপির এই পদক্ষেপে তৃনমূলের অধীনে থাকা পৌরসভার সম্মতি রাজ্যবাসী, বিশেষ করে মুসলিম সম্প্রদায়কে আরো বেশী হতাশার শিকার করবে। তাই হাসিবুল ইসলাম রাজ্য সরকার, রাজ্য ওয়াকফ বোর্ড ও সুশীল সমাজের নিকট আবেদন করেন যে, বিজেপির উক্ত পদক্ষেপের উপযুক্ত তদন্ত করে সকলেই যেন এই সম্পত্তিতে বিজেপির আগ্রাসন থেকে রক্ষা করার জন্য এগিয়ে আসে, কারন এটা তাদের নাগরিক দায়িত্ব।
READ  লকডাউনে অসহায়দের সহায় হয়ে উঠেছে হোপ
উল্লেখ্য, সাচার কমেটির রিপোর্টে সারা ভারতবর্ষে রাজ্যে ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল জুড়ে প্রায় ৪ লক্ষ ৯০ হাজার নিবন্ধীকৃত ওয়াকফ সম্পত্তি আছে। সব থেকে বেশি পশ্চিমবঙ্গে ১,৪৮,২০০। সারা দেশে ওয়াকফ সম্পত্তির ভুমিগত পরিমান ৬ লক্ষ একরের কাছাকাছি। বর্তমানে বাজার দরে এই সম্পত্তির মূল্য ১ লক্ষ ২০ হাজার কোটি টাকা। দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বেআইনি ভাবে বেদখল হয়ে রয়েছে ওয়াকফ সম্পত্তি। খোদ কলকাতার প্রাণকেন্দ্রে আছে প্রিন্স গোলাম মুহাম্মদ ওয়াকফ সম্পত্তি। হাজি মহম্মদ মহাসিন ফান্ড তথা ঐ ওয়াকফ সম্পত্তি থেকে মুসলমান বঞ্চিত। হুগলি মাদ্রাসা যেটির বয়স ২০০ বছরের ও বেশি সেই ঐতিহাসিক মাদ্রাসাটি সরকারের হীন প্রচেষ্টায় শেষ হতে চলেছে। হুগলি মাদ্রাসা, হুগলি কলেজ, হুগলি জেনারেল হাসপাতাল সবই হাজী মোহাম্মদ মহসিন ওয়াকফ সম্পত্তি।
এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA