পালঘর মব লিঞ্চিং

পালঘর মব লিঞ্চিং, ন্যায় বিচার এবং রাজনীতি

পালঘর মব লিঞ্চিং এবং পূর্বের ঘটে যাওয়া আরও কিছু মব লিঞ্চিং নিয়ে এই লেখাটি লিখেছেন আবু তারিক। 

“লাগেগি আগ তো আয়েগি ঘর কায়ি জাদ মে

ইহাপে সিরফ হামারা মাকান থোড়ি হ্যায়”

ভারতে যখন মুসলিমদেরকে বাচ্চা চুরি, গরু চুরির অপবাদ দিয়ে পিটিয়ে মারা হচ্ছিল। তখন এক শ্রেণীর মানুষ (পড়ুন সঙ্ঘিরা) বলতো যে “এদের সাথে এরকম ব্যবহার করাই উচিৎ, ঠিক করেছে, মোল্লাদের দেশ থেকে তাড়ানো উচিৎ”। (আমি নিজেই এরকম অনেক পোস্ট দেখেছি)  

আর আমরা মানে সাধারণ ভারতীয়রা বিশেষ করে মুসলিমরা নির্যাতিতের জন্য ন্যায় বিচারের দাবীতে আওয়াজ ওঠাতাম। দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবীতে…  

আজ যখন মহারাষ্ট্রে দুই সাধু সহ তিনজনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এখনো আমরা তাদের জন্য ন্যায় বিচারের দাবীতে আওয়াজ তুলছি। ভবিষ্যতেও তুলতেই থাকবো। পালঘর মব লিঞ্চিং এর দোষীদের শাস্তির দাবীতে মুখর হবোই। কারন আমি বিশ্বাস করি দোষীদের শাস্তি না দিয়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা কখনোই সম্ভব নয়।

আজ যদি জুনাইদ, আফ্রাজুল, পেহলু খানকে মব লিঞ্চিং এর মাধ্যমে হত্যাকারীদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হতো। যদি খুনিরা চরম শাস্তি পেতো। তাহলে আজ আবার দুই সাধুকে চুরির অপবাদে খুন হতে হতো না।  

সোশ্যাল মিডিয়াতে দেখা যাচ্ছে যে সমস্ত মানবতার দুশমনরা জুনাইদ, আফ্রাজুল, পেহলু খান, আলিমুদ্দিনের মব লিঞ্চিং কে সমর্থন করেছিল তারাই আজ দুই সাধুর হত্যার জন্য অপরাধীদের শাস্তির দাবীতে আওয়াজ তুলছে। খুব ভালো কথা। আমরাও তো সেটাই চাই? সমস্ত মব লিঞ্চিং এর অপরাধীর শাস্তি হোক।  

কিন্তু একবার ভাবুন তো এই মব লিঞ্চিং ভারতে কারা শুরু করেছে, কাদের রাজনৈতিক আশ্রয়ে থেকে মব লিঞ্চিংএর দোষীরা শক্তিশালি হয়েছে? এবার উপরে দেওয়া রাহাত ইন্দোরির লেখা দুই লাইন কবিতা একবার পড়ে নিন আবার…  

(এই লেখায় সমস্ত মতামত লেখকের নিজস্ব)   

READ  মুসলিম বিদ্বেষ এবং এবিপি নিউজ

Read More about Palghar Mob Lynching

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA