মথুরার শাহী ইদগাহ মসজিদ সরানোর দাবী খারিজ করলো কোর্ট

মথুরার শাহী ইদগাহ মসজিদ সরানোর দাবী খারিজ করলো কোর্ট

নতুন করে এই বিবাদ উস্কে দিতে সঙ্ঘ পরিবারের প্রয়াস আজ অনেকটাই ধাক্কা খেয়েছে
বাবরি মসজিদ নিয়ে রায়ের কিছু ক্ষণের মধ্যেই কৃষ্ণ জন্মভূমি নিয়ে মামলা খারিজ করে দিল মথুরার একটি আদালত। যার ফলে নতুন করে এই বিবাদ উস্কে দিতে সঙ্ঘ পরিবারের প্রয়াস আজ অনেকটাই ধাক্কা খেয়েছে। তবে আদালতে আর্জি খারিজের পরে মামলাকারীদের আইনজীবী বিষ্ণু জৈন জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত যাবেন তাঁরা।
রামমন্দিরের পাশাপাশি মথুরা ও কাশীর মন্দির নিয়েও আন্দোলনে নেমেছিল সঙ্ঘ পরিবার। রামমন্দির আন্দোলনের সময়ই গেরুয়া বাহিনীর আওয়াজ ছিল, ‘অযোধ্যা তো সির্ফ ঝাঁকি হ্যায়, কাশী-মথুরা আভি বাকি হ্যায়’। রামমন্দিরের শিলান্যাসের পরে সেই আওয়াজ আরও জোরালো হয়েছিল। রামমন্দির আন্দোলনের অন্যতম নেতা বিনয় কাটিয়ার মথুরায় কৃষ্ণজন্মভূমি মামলার আগে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, মথুরায় শ্রীকৃষ্ণ জন্মভূমি মন্দিরের লাগোয়া ইদগাহ মসজিদের জমি হিন্দুদের। তার দখল নিতে হবে। প্রয়োজনে আন্দোলনও হবে। কিন্তু মথুরা আদালতের আজকের রায়ে সঙ্ঘ পরিবারের প্রয়াস অনেকটাই ধাক্কা খেল। তবে বিষয়টি এখানেই যে শেষ হচ্ছে না, বিষ্ণু জৈনের কথায় তা স্পষ্ট। প্রসঙ্গত, ১৯৯১ সালে ধর্মীয় স্থান সংক্রান্ত একটি বিশেষ আইন পাশ করা হয়। বলা হয়, কোনও মসজিদকে ভেঙে মন্দিরে বা মন্দির ভেঙে মসজিদ নির্মাণ নিষিদ্ধ। একমাত্র অযোধ্যা বিতর্কিত জমি মামলাকে এই আইনের বাইরে রাখা হয়। গত বছর অযোধ্যার মামলায় রায় দিতে গিয়ে এই আইনের উল্লেখ করেছিলেন বিচারপতিরা। বলেছিলেন, এই রায়ের উদাহরণ টেনে অন্য মামলা করা হলে তা গ্রহণ করা হবে না।
এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA