Aarong

Aarong: দাড়ি থাকায় চাকরিতে ‘প্রত্যাখ্যাত’ মুসলিম যুবক, বিক্ষোভ বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায়

দাড়ি থাকার কারণে বাংলাদেশের জনপ্রিয় রিটেইল ব্র্যান্ড আড়ংয়ে চাকরি পাওয়া থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন, এক যুবক এমন অভিযোগ তোলার পর সিলেটে আড়ংয়ের বিক্রয়কেন্দ্রের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন স্থানীয় একদল বাসিন্দা।

Aarong: দাড়ি থাকায় চাকরিতে 'প্রত্যাখ্যাত' মুসলিম যুবক, বিক্ষোভ বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায়
Aarong এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সিলেটে

পরে আড়ং এক বিবৃতি দিয়ে ওই যুবকের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে দুঃখজনক বলে উল্লেখ করেছে।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া আট মিনিটের একটি ভিডিওতে দেখা যায় এক যুবক, নিজেকে ইমরান হোসেন ইমন নামে পরিচয় দিয়ে বলছেন, তিনি আড়ংয়ে বিক্রয়কর্মীর একটি নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন, মুখে মাস্ক পরেই তিনি সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন, সাক্ষাৎকারগ্রহীতারা তার সাথে সন্তুষ্ট বলে তার মনে হয়েছিল। কিন্তু এক পর্যায়ে সাক্ষাৎকারগ্রহীতাদের চাহিদা মোতাবেক তিনি মাস্ক খোলেন এবং তার মুখভর্তি দাড়ি প্রকাশিত হয়ে পড়লে সাক্ষাৎকারগ্রহীতারা তাকে বলেন, তাদের নীতিমালা অনুযায়ী তারা দাড়িওয়ালা ব্যক্তিদের বিক্রয়কর্মী হিসেবে নিয়োগ দিতে পারেন না।

‘তারা বললো আপনি যদি ক্লিন শেভ করতে পারেন তাহলে আপনার জবটা আমরা এখানে কনফার্ম করতে পারবো ‘, সাক্ষাৎকারগ্রহীতাদের বক্তব্যের বরাত দিয়ে ভিডিওটিতে বলেন এই যুবক।

এই ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথেই সোশ্যাল মিডিয়ায় Aarong কে বয়কট করার আহ্বান জানানো হয় বিভিন্ন প্লাটফর্ম থেকে। জিহাদ হাসান নামের এক ব্যক্তি লিখেছেন- “আড়ং শো রুমে এক মুসলিম ভাই দাড়ি রাখায় তাকে চাকরি দেওয়া হয়নি। তাকে ইন্টারভিউ থেকে ফেরত দিয়েছে। তাই আমরা সবাই আড়ং কে বয়কট ঘোষনা করি, আমিও করলাম।

মিজানুর রহমান আজহারির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে লেখা হয়েছে যে “দাড়ি পুরুষের শোভা, পৌরুষত্ব ও ব্যক্তিত্বের পূর্ণতার প্রতীক। মুসলিম জাতি সত্তার অন্যতম পরিচায়ক ও নিদর্শন। তাই, এ পৃথিবীর সকল নবী-রাসুল দাড়ি রেখেছেন। রাসুলুল্লাহ (ﷺ‬) দাড়ি রাখতে মুসলিম পুরুষদের আদেশ দিয়েছেন। আল্লাহ তা’আলা মানুষের সৃষ্টিগত এই শোভা ও সৌন্দর্যকে পরিবর্তন কিংবা বিকৃত সাধন করতেও নিষেধ করেছেন।

কোন প্রতিষ্ঠান তার ইমপ্লোয়ি নিয়োগ দেয়ার ক্ষেত্রে, কাকে নিয়োগ দিবে আর কাকে দিবে না— সে ব্যাপারে পূর্ণ অধিকার তারা রাখে। কিন্তু ইসলামি সংস্কৃতি ও ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত দেয়ার এখতেয়ার রাখেনা।ইসলামি লাইফস্টাইলে অভ্যস্ত বিয়ার্ডেড যুবকদের আপনার প্রতিষ্ঠানে রিক্রুট করবেন না, আর ইসলামের ধর্মীয় উৎসবে ঈদ উপলক্ষে পাঞ্জাবি, পায়জামা এবং কটি বিক্রি করে শত শত কোটি টাকার বিজনেস করবেন! ব্যাপারটা কেমন দ্বি-মূখী হয়ে গেলো না?

Aarong
আড়ং নিয়ে পোস্টার

আলহামদুলিল্লাহ। ইসলামি জীবনাচার ও মূল্যবোধ রক্ষার অনুভূতি আজো এদেশে টিকে আছে। ব্যাবসা করতে চান, ব্যাবসা করুন। দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে আড়ং এর সুনাম দীর্ঘ দিনের। এটা ধরে রাখার চেষ্টা করুন। পলিসি রিভাইজ করুন। দেশীয় আস্থাশীল কোন ব্র্যান্ডের এরকম পলিসি সাধারণ মানুষজনও ভালোভাবে নিচ্ছে না। তাই, কারো আত্মপরিচয় ও মূল্যবোধের জায়গায় হাত না দিয়ে, আরো উদারনীতি অবলম্বনের বিনীত আহবান রাখতে চাই।”

Aarong: দাড়ি থাকায় চাকরিতে ‘না’, বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA