ইমদাদুল উলুম সিনিয়র মাদ্রাসায় শিক্ষক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান


এইচ.ইউ.ফারুক, ডি.এন.এম,মালদা:
মালদা জেলার কালিয়াচক ১ নং ব্লকের ইমদাদুল উলুম সিনিয়র মাদ্রাসায় এক বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান এদিন অনুষ্ঠিত হয়ে গেল।অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক নিমায় সরকার মহাশয় কে সংবর্ধিত করা হয় উক্ত অনুষ্ঠানে।১৯৮৯ সালে তিনি ইতিহাস বিষয়ের শিক্ষক হিসেবে উক্ত মাদ্রাসায় যোগদান করেন।তার পর দীর্ঘ ২৮ বছর ৫ মাস তিনি এখানে দক্ষতা ও সুনামের সঙ্গে কর্মরত ছিলেন।অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হয় পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত এর মাধ্যমে।বিদায়ী শিক্ষকের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান উপলক্ষে এদিন মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে বহু বিশিষ্ট জনের সমাগম ঘটে।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শিক্ষক এজাজুল হক,মালদার বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন মাওলানা আবদুল হাই,বিশিষ্ট শিক্ষক তথা সমাজসেবী আবদুল লাহিল মামুন প্রমুখ।
ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রফিকুল আলম বলেন-নিমাই বাবু আমার শিক্ষক, আমি এই মাদ্রাসায় উনার কাছে শিক্ষা লাভ করেছি।আজকে উনার বিদায় বেলায় মন ভারাক্রান্ত, আমি একজন আদর্শ শিক্ষক কে হারালাম।প্রধান অতিথি জাতীয় শিক্ষক এজাজুল হক বলেন-মানুষ হিসেবে নিমাই বাবু খুবই ভালো সেই সঙ্গে আদর্শ শিক্ষক।মাদ্রাসা বোর্ডের সদস্য শাকিলার রহমান জানান-আমরা একজন ভালো মানুষ ও প্রকৃত শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি কে হারালাম।বিশেষ অতিথি বিশিষ্ট শিক্ষক আবদুল লাহিল মামুন জানান-নিমাই বাবু খুবই সরল প্রকৃতির মানুষ।ছাত্র দরদী শিক্ষক হিসেবে এলাকায় তিনি সুপরিচিত। তিনি চলে যাওয়ায় এলাকার শিক্ষা জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হল।বিদায়ী শিক্ষক নিমাই বাবু তাঁর ভাষণে আবেগ তাড়িত হয়ে বলেন-ইমদাদুল উলুম সিনিয়র মাদ্রাসার সঙ্গে আমার যেন নাড়ির টান।এই মাদ্রাসা ছেড়ে চলে যেতে আমার হৃদয় বেদনায় ভারাক্রান্ত হয়ে গেছে।এই মাদ্রাসা হিন্দু মুসলিম উভয় সম্প্রদায়েরর মিলন তীর্থ।আমরা সবাই মিলেমিশে শান্তি ও সৌভ্রাতৃত্বের পরিবেশে এক সঙ্গে শিক্ষা বিস্তারের কাজ করেছি।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উক্ত মাদ্রাসার শিক্ষক শরিফুল ইসলাম, তাজমল হক,চৈতন্য মন্ডল,জয়িতা দাস প্রমুখ।এছাড়াও মাদ্রাসার ছাত্র ছাত্রী,অভিভাবক ও এলাকার বহু বিশিষ্ট জন।মাওলানা আব্দুল হাই এর মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *