মাদ্রাসা পরিচালন সমিতি দ্বারা নিয়োগ প্রাপ্ত ভুয়ো শিক্ষক দের চাকরি অবৈধ ঘোষণা করল রাজ্য সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক,ডি.এন.এম,কলকাতা,৮অক্টোবর:রাজ্যের সরকারি অনুমোদিত ও অনুদান প্রাপ্ত মাদ্রাসায় ৬১৪টি মাদ্রাসায় দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে নিয়োগ নেই।মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের বৈধতা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলছে।কমিশনের 6th slst পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৩৭০৬জন চাকুরি প্রার্থী একবছরের ও অধিককাল ধরে বসে আছেন।আর এই সব সফল মেধাবী চাকুরি প্রার্থী দের বঞ্চিত করে মাদ্রাসা পরিচালন সমিতি লক্ষ লক্ষ টাকার বিনিময়ে অযোগ্য দের অবৈধভাবে নিয়োগ করে থাকে।তবে কাকতলীয় ভাবে হলে ও পশ্চিমবঙ্গের মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য ১১ই সেপ্টেম্বর২০১৭ তারিখ টি ঐতিহাসিক ও স্মরণীয়।মাদ্রাসা শিক্ষার ক্ষেত্রে দিনটি নতুন প্রভাতের সূচনা করল।কারণ উক্ত দিনে কলকাতা হাই কোর্ট মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের 6th slst এর নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য কমিশন কে নির্দেশ দেয়।অন্যদিকে ঐএকই দিনে মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তর থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেন মাদ্রাসা শিক্ষা অধিকর্তা আবিদ হোসেন। তিনি জানান-রাজ্য সরকার ম্যানেজমেন্ট কোটায় নিয়োগ প্রাপ্ত মাদ্রাসা শিক্ষকদের চাকরি বাতিল করেছে।মাদ্রাসা পরিচালন কমিটি শিক্ষক নিয়োগ করার ক্ষেত্রে প্রচুর আর্থিক দুর্নীতি ও অনিয়ম করেছে বলে সূত্রের খবর।নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষকদের শিক্ষা গত যোগ্যতা ও বয়স নিয়েও অভিযোগ উঠেছে।অবশেষে রাজ্যসরকার সত্যতা যাচাই করেই ১৪টি সরকারি অনুমোদিত ও অনুদান প্রাপ্ত মাদ্রাসায় অবৈধভাবে নিযুক্ত ঊনচল্লিশ জন ভুতুড়ে শিক্ষককের চাকরি অবৈধ ঘোষণা করল।রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগ কে শিক্ষাবিদ ও শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষরা স্বাগত জানিয়েছেন।

রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় যে সকল মাদ্রাসায় তাদের অবৈধভাবে ব‍্যাকডেটে নিয়োগ করা হয়েছে তাদের তালিকা নিম্নরূপ:-
এনায়েতপুর আর এস এ সিনিয়র মাদ্রাসা(দ: চব্বিশ পরগণা)-নাসিমা বিবি,সেখ মন্জুর আলী।

মহম্মদপুর দারুল উলুম সিনিয়র মাদ্রাসা(পূ: মেদিনীপুর) –কামরুজ্জামান খান,মোঃ সাহাবুদ্দিন খান।

গিমাগেড়িয়া ওয়েলফেয়ার হাই মাদ্রাসা(পূ: মেদিনীপুর) –মোঃ আবু হাসান আলী,সেখ সফিউদ্দিন,মহিউল ইসলাম, রাজ কুমার বাঘ,সেখ ইসলাম উদ্দিন।

চেঙ্গাইল হাই মাদ্রাসা(হাওড়া)-রামিজ রাজ খান,সেখ আক্তার আলী, ম: সুজাউদ্দিন,সেখ আতাউর রহমান, সেখ আব্দুল সালাম।

রঙমহল কোরানিয়া হাই মাদ্রাসা(HS)(উলুবেড়িয়া,হাওড়া)-সেখ মইদুল ইসলাম,সেখ মুস্তাক আহমেদ,মিজানুর লস্কর,সেখ মইদুল ইসলাম।

পূর্ব গড়চক্রবেড়িয়া জু: হাই মাদ্রাসা(পূ: মেদিনীপুর)- সাবিনা ইয়াসমিন সাহ্।

রামবাগ সিদ্দিক জু: হাই মাদ্রাসা(পূ: মেদিনীপুর)- সেখ জাহিরুল ইসলাম।

কন্টাই সওকতিয়া জু: হাই মাদ্রাসা(পূ: মেদিনীপুর)- ম: নাসিম বারি খান, সেখ সামিম আলী, সেখ আতাউল্লাহ।

মাজনা হাই মাদ্রাসা(পূ: মেদিনীপুর)-সেখ সাফায়েতুল্লা।

মিলনগড় সাজ্জাদিয়া হাই মাদ্রাসা(মালদা)- এ বি তরিকুর রেজা, এম এস টি সামিনা ইয়াসমিন, ম: মীর মোসাররফ হোসেন।

মিটনা সোলেমানিয়া হাই মাদ্রাসা(মালদা)– বেনজির ইয়াসমিন,এম এস টি নুরজাহাত বানু, সাবিরুদ্দিন, সইবুর রহমান।

মঙ্গুরা জু: হাই মাদ্রাসা(হুগলী)-সেখ আরিফ আব্বাস।

চাপড়া হাই মাদ্রাসা (HS)(Chhapara High Madrasah H. S.)‌‍‌(উ: চব্বিশ পরগণা)-আসলাম পারভেজ রহমান, ফারুকুদ্দিন আহাম্মেদ, নার্গিস পারভীন,সরিফা খানম,তুহিন মোল্লা, আব্দুর রহমান।

কামারিয়া হাই মাদ্রাসা(দ: চব্বিশ পরগণা)-সামিনা সর্দার।

এই সব শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অবৈধ ঘোষণা করে মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তর জানায়-এদের কারুর বয়স পার হয়ে গেছে তো কারুর ডিগ্ৰী জাল-এককথায় তারা অযোগ্য।আবার নিয়োগ প্রক্রিয়াতেও অনেক অনিয়ম করা হয়েছে ।তাদের নাকি১০% ম‍্যানেজমেন্ট কোটায় নিয়োগ করা হয়েছে।
মালদার মিলনগড় সাজ্জাদিয়া হাই মাদ্রাসায় যে তিনজন ভুয়ো শিক্ষক এর নাম তালিকায় রয়েছে তাদের মধ্যে এ বি তরিকুর রেজা ও মহম্মদ মীর মোসাররফ হোসেন কে সেই মাদ্রাসার স্থায়ী শিক্ষকগণ কেউই চিনতে পারছেন না এমনকি তাদের কোন দিন মাদ্রাসায় দেখাও যায়নি।তবে কি লক্ষ লক্ষ টাকার বিনিময়ে এই রকম অশরীরী ভুতুড়ে ভুয়ো শিক্ষক নিয়োগ করেছে বিভিন্ন পরিচালন সমিতি-প্রশ্ন উঠেছে নানা মহলে।
প্রসংগত উল্লেখ্য,গত ২৪শে এপ্রিল ২০১৭ সুপ্রিম কোর্ট ‘লিভ গ্রান্ট’করার পরে মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তর ২৬শে এপ্রিল২০১৭তারিখে বিজ্ঞপ্তি জারি করে মাদ্রাসার ১০% ম্যানেজমেন্ট রুলসে সমস্ত নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে।কিন্তু তারপরও কিছু কিছু মাদ্রাসা নিয়মনীতি অগ্রাহ্য করে বেতন ও নিয়োগের অনুমোদন চায়।রাজ্য সরকার এবার নির্দেশিকা জারি করে কমিটির মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতে দিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *