যোগীর রাজ্যে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে রেপ করলো বালিকার সাথে পুলিশ ও দারোগা

উত্তরপ্রদেশ:- উত্তর প্রদেশে যখন থেকে যোগী আদিত্বনাথ মূখ্যমন্ত্রী হয়েছেন, তার জন্য সব থেকে চ্যারেন্জেল বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে সেখানকার বিগড়ে যাওয়া কানুন ব্যবস্থাকে ঠিক করা। কেননা মাঝে মাঝেই মহিলাদের উদ্যক্ত করার ও রেপ করার ঘটনা সামনে আসছে। যোগী সরকার তার রায্যে মহিলাদের সুরক্ষার ব্যাপারে অনেক কথায় বলে থাকে কিন্তু রক্ষক যদি ভক্ষক হয়ে যায় তাহলে কে করিবে রক্ষা? এর থেকে লজ্জার কথা কি কথা হতে পারে যে যাদের দায়িত্ব ছিল সুরক্ষা দেওয়া, তারাই আজ সুরক্ষার বরোটা বাজিয়ে দিচ্ছে।
যার তাজা ঘটনা মথুরা থেকে সামনে এসেছে। মথুরায় পুলিশ এবং দারোগা মিলে এক নাবালিকাকে রেপ করে কূকর্ম করেছে। তাদের উপর হচ্ছে তারা নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে মেয়েটির সাথে কূকর্ম করে।
এর পর দারোগা এবং পুলিশ নাবালিকা এবং তারর পরিবারকে বদনাম করার হুমকি দেয়। উল্লেখ্য তারা দুজনেই নাবালিকাটির বাড়িতে ঘর ভাড়াই থাকতো । নাবালিকা বেশ কয়েকদিন থেকেই ন্যায় পাওয়ার জন্য আধিকারিকদের চক্কর লাগিয়েছে।
মিডিয়া রিপোর্ট মুতাবিক, গোবিন্দনগর এলাকার লাল দরওয়াজায় নিরন্জন দাস এর বাড়িতে দারোগা রমাকান্ত পান্ডে এবং পুলিশ প্রবীন উপাধ্যায় কয়েকমাস থেকে ভাড়াতে থাকছিল।


নিরন্জন দাসের ১৪ বছরের মেয়ে বাড়িতে একাই থাকতো। খবর মুতাবিক, নিরন্জন দাসের বাড়ি থেকে যাওয়ার পনমরেই পুলিস এবং দারোগা তাকে উত্যক্ত করতে লাগতো।
বিরোধিতা করায় মা বাবাকে মিথা মামলায় জেলে পাঠানোর হুমকি দিত। পুলিশটি ২০ সেপ্টেম্বর আরতিকে ফোন করে এক হোটেলে আসতে বলে। আরতি গোবিন্দনগর থানা এলাকার হোটেলে আসে, যেখানে আরতির সাথে পুলিশ এবং দারোগা রেপ করে।
পীড়িতার পরিবার ন্যায় এর আশায় পুলিশ আধিকারিকদের চক্কর লাগাই , কিন্তু পুলিশ কোনো তদন্তই করেনি। যখন খবর মিডিয়াই প্রকাশ হয়ে পড়ে তখন মথুরার এস এস পি বাধ্য তদন্ত করার আদেশ দেয়।

2 thoughts on “যোগীর রাজ্যে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে রেপ করলো বালিকার সাথে পুলিশ ও দারোগা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *